রজব সম্পর্কে কুরআন কি বলে?

রজব সম্পর্কে কুরআন কি বলে?

আসসালামু আলাইকুম ও রহমতুল্লা। ইসলামের একটি গুরুত্বপূর্ণ পিলার হল ‘রজব’। কুরআন্টাকে পবিত্র ইসলামী গ্রন্থ মনে করা হয়ে থাকে এবং রজব প্রসঙ্গেও কুরআনের উল্লেখ রয়েছে। কুরআন আমাদেরকে রজব সম্পর্কে ধারাবাহিক মনে করতে সাহায্য করে এবং আমাদেরকে ইসলামের গুরুত্বপূর্ণ মূলসূত্র এটি প্লান করতে সাহায্য করে।

রজব হলো একটি ইসলামী উপস্থাপনা, যা মুসলিমরা প্রতি বছরে আরব দেশের মক্কা শহরে অনুষ্ঠান করে। এই উপস্থাপনাটি হলো ইসলামীর দুটি প্রধান উপস্থাপিত মহম্মদ ছত্রধারীর পাশাপাশি মীজগান পরিচালিত একটি কর্মকাণ্ড। এই ইসলামী উপস্থাপনাটি মাসে-মাসে অনুষ্ঠান করা হয় না, বরং বছরে একবার শরীয়ত অনুসারে অনুষ্ঠান করা হয়। এ উপস্থাপনাটি অনুষ্ঠানে পরিচালক, বস্তুদ্বয়, একটি বন্ধুত্বপূর্ণ উদ্যানগুলি থাকে।

কুরআনে রজব সম্পর্কে উল্লেখ পাওয়া যায়। আল বাকারাঃ ২০০ নং আয়াতে কুরআনে বলা হয়েছে, “সেদিন আল্লাহ উন্নতি দিদেন যা মানুষের কাছে অনুভূতি বাড়িয়েছে এবং আল্লাহ গ্রহণকারীর দিকে মানুষের ওপরে পাঠালেন।”

রজবের মূলনীতিগুলি কুরআন থেকে বুঝানো হয়েছে। আলু ইমরানঃ ৩৯ নং আয়াতে কুরআনে বলা হয়েছে, “তখন মারিয়াম অলীহাঃমায় শিশুকে আপনার লাভ করেন? তিনি বলেছেন, ‘আমি বিষ্ময়ে গ্রহণকারীর পাশাপাশি ফেরী যায়।'”

এছাড়াও, কয়েকটি আহাদিস সহ কুরআনে রজব সম্পর্কে আরো তথ্য প্রদান করে। আল হাশরঃ ৯ নং আয়াতে কুরআনে বলা হয়েছে, “আল্লাহ তাঁর আলায়া এবং আল্লাহের রজব পাবেন।”

রজব সম্পর্কে কুরআন কি বলে?

Credit: m.youtube.com

রজব সম্পর্কে কুরআন কি বলে?

Credit: www.facebook.com

রজব সম্পর্কে আরও তথ্য

রজব ইসলামী ওয়ার্ড হলো “সর্বশেষ” বা “পূর্বতম” বোথে অর্থে ব্যবহৃত হয়। আল্লাহর রজবের মাহেল হলো মহম্মদ ছত্রধারী হিসেবে ব্যবহৃত, যিনি ইসলামী ধর্মপথকে প্রবর্তন করেন। রমজান মাসের ১৭ই শক্তিপূর্ণ রাতের উপস্থাপনা “রজবের শবে বরাত” নামে পরিচিত।

রজবের শবে বরাত মানে হলো “রজবের রাতে বারকাহ এবং মাগফিরাতের রাত”। এই উপস্থাপনাটি বিশ্ব ভাষায় আরবিতে প্রথম ব্যবহৃত হয়েছে। রজবের শবে বরাত ইসলামী বর্ষার বার্ষিক উপস্থাপনার মধ্যে একটি।

রজবের শবে বরাতের উপস্থাপনাটি ইসলামিক সংস্কৃতির একটি সামরিক বিষয় হিসাবে প্রচলিত। এটি প্রতি বছরে চার মাস আগের প্রতিমাসে বস্তুগুলিতে আন্তর্জাতিক জনগণ একসঙ্গে আরব দেশের মক্কা শহরে উপস্থাপন করে।

রজবের শবে বরাত বাংলা ক্যালেন্ডারে “শবে মেরাজ” নামেও পরিচিত। মেরাজ মুসলিম ধর্মের পবিত্র ঘটনা যা আল্লাহ তাঁর মানুষিক শক্তি দ্বারা মুহাম্মদ ছত্রধারীকে অনুভব হয়েছিল। এই ঘটনাটির পরপরীক্ষা এবং মাস্টার্ড্রাফ্ট আরই হিসাবে খুব জনপ্রিয়।

এরপরে যে কাউকে আপনার ব্লগ পাঠ্য পেতে সমস্যা হলে প্রয়াস করুন এয়ারটেল ডিজিপিটাল লিমিটেড ।

Comments

No comments yet. Why don’t you start the discussion?

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *